২৫ জুলাই ২০২৪

পাকিস্তানের ‘ডু অর ডাই’ ম্যাচ আজ, ভারতকে কি হারাতে পারবে?

কিশোর ডাইজেস্ট ডেস্ক
০৯ জুন ২০২৪, ১০:৩৭
মুখোমুখি হচ্ছে দুই প্রতিবেশী ভারত ও পাকিস্তান। ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় ম্যাচ আজ। মুখোমুখি হচ্ছে দুই প্রতিবেশী ভারত ও পাকিস্তান। ফাইনালের আগে এ যেন আরেক ফাইনাল দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর মাঝে। রবিবার (৯ জুন) নাসাউ কাউন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গড়াবে এই দুই দলের লড়াই। খেলা শুরু বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায়।

বিশ্বকাপে যেন ‘ডু অর ডাই’ অবস্থানে দাঁড়িয়ে পাকিস্তান। জিততেই হবে তাদের। এতো কঠিণ সমীকরণ পাকিস্তান পেয়েছে নিজ দোষেই। প্রথম ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অবিশ্বাস্যভাবে হেরে যায় বাবর আজমের দল। প্রথমবার বিশ্বকাপ খেলতে আসা দলটার কাছে লজ্জায় ডুবে সুপার ওভারে। ফলে দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে হলে পাকিস্তানকে কঠিণ পরীক্ষাই দিতে হবে।

চ্যালেঞ্জিং অবস্থান থেকে ঘুরে দাঁড়ানো বেশ কঠিণ হলেও দলটা পাকিস্তান বলে সবই সম্ভব। কখন কিভাবে কি করে ফেলে, হিসেব-নিকেশ বদলে দেয়, তা কে জানে! ভারত অবশ্য ভালো অবস্থানেই আছে৷ আয়ারল্যান্ডকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে বিশ্বকাপের শুভ সূচনা করে তারা। ফলে তারা বেশ নির্ভার থাকবে।

প্রথম ম্যাচ হারায় একাদশে নিশ্চিতভাবে পরিবর্তন হবে পাকিস্তানের। কারণ ম্যাচটা বাঁচা মরার তাদের জন্য। এ ম্যাচ হারলে সুপার এইটের আগে ছিটকে যাওয়ার শঙ্কা বাড়বে পাকিস্তানের। তাই আজম খানের জায়গায় ফিরতে পারেন উসমান খান। সবশেষ ৬ টি-টোয়েন্টির ৩টিই ০ রানে আউট হয়েছেন আজম।

পেসার নাসিম শাহর জায়গায় ভাবা হচ্ছে স্পিনার আবরার আহমেদকে। আর চোট কাটিয়ে ফিরতে পারেন ইমাদ ওয়াসিম। তবে একাদশ নিয়ে ধারণা দিতে পারেননি কোচ গ্যারি কারস্টেন,‘‘আমাদের দলে ফিটনেসের ইস্যু আছে। শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চাই আমরা। খেলোয়াড়রা একে অন্যের খেলা নিয়ে জানে ভালোভাবে। কন্ডিশন অনুযায়ী নিজেদের সেরাটা খেলতে চাই আমরা।’’

ওয়ানডে বিশ্বকাপে ভারতকে কখনও হারাতে পারেনি পাকিস্তান। তবে টি-টোয়েন্টিতে হারিয়েছে একবার। ২০২১ বিশ্বকাপে ভারতকে ১০ উইকেটে বিধ্বস্ত করেছিল পাকিস্তান। শাহিন শাহ আফ্রিদি স্বপ্নের স্পেলে ফিরিয়েছিলেন দুই ওপেনারকে। ৩১ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচে সেরা হন তিনিই। ২০২২ সালে এশিয়া কাপেও ভারতকে ৫ উইকেটে হারিয়েছিল পাকিস্তান। আফ্রিদিকে ছাড়াই এই ম্যাচটা জিতে তারা। তাই পাকিস্তানকে সমীহ না করে উপায় নেই ভারতের।

সবমিলিয়ে দুই দল মুখোমুখি হয়েছে ১২ ম্যাচে। এর ৮টি জিতেছে ভারত, ৩টি পাকিস্তান আর টাই হয় ২০০৭ বিশ্বকাপের ম্যাচটি। তখন সুপার ওভার ছিল না। টাইয়ের পর বোল আউটে (স্টাম্প ভাঙা) ৩-০’তে জিতেছিল ভারত। এরপর ২০২১ বিশ্বকাপ ছাড়া এই টুর্নামেন্টে সব ম্যাচই জিতেছে ভারত।

এবার অবশ্য দুই দলের মহারণের চেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে পিচ নিয়ে। নিউইয়র্ক নাসাউ স্টেডিয়ামের ড্রপ ইন পিচে শ্রীলঙ্কা মাত্র ৭৭ রানে গুটিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে। সেই দক্ষিণ আফ্রিকা কাল নেদারল্যান্ডসের কাছে হারতে পারত ১০৩ রান তাড়া করতে নেমে।

পিচ নিয়ে কড়া সমালোচনার পর নড়েচড়ে বসে আইসিসি। বিশ্বসেরা মাঠ কর্মীদের নিয়ে ঘোষণা দেয় মানসম্পন্ন পিচ তৈরির। সেটা তারা কতটা পারল বোঝা যাবে আজই। তবে পিচ যেমনই হোক দর্শক আগ্রহের কমতি নেই ম্যাচটি ঘিরে। গ্যালারিতে থাকবে দুই দলেরই বিপুল উপস্থিতি। সারা বিশ্বে থাকবে কোটি দর্শক-শ্রোতার আগ্রহ। দারুণ জমজমাট ম্যাচ হবে, জয় হবে ক্রিকেটের, এটাই সবাই আশা করছেন।